Yunus Addresses Global Social Change Makers in Australia

Yunus Addresses Global Social Change Makers in Australia

Press Release

Calls for Reshaping the Thinking Process to Change the World

Nobel Laureate Professor Muhammad Yunus with Ms Linda Dessau AC, the Governor of Australian state of Victoria. Linda is the first female governor of the state.

Nobel Laureate Professor Muhammad Yunus, in Melbourne addressed the ‘Nexus Australia Conference’. Nexus is a global movement of more than 2500 young (aged 20 - 40 years) philanthropists, investors and social entrepreneurs from over 80 countries collaborating to fast-track social change. Professor Yunus addressed a packed room of 200 social entrepreneurs and changemakers calling them out to take the future in their own hands to solve the problems in their communities, countries and the world through social business.

 

Earlier a large public event with over 300 hundred attendees was organized by Monash University Sustainable Development Institute (MSDI). The Vice Chancellor of Monash University Professor Margaret Gardner thanked Professor Yunus for his contributions over the last four decades in uplifting millions out of Poverty. Professor Yunus delivered his keynote address and was also interviewed on stage by Professor John Thwaites, the Chairman of MSDI.

Nobel Laureate Professor Muhammad Yunus a meeting with Linda Dessau AC, the Governor of Victoria. Linda is the first female governor of the state. She lauded Professor Yunus on his lifelong work. Yunus briefed her on the work if social business around the world. The Governor wanted to know how this concept can applied in Australian context.

Professor Yunus also gave a special address at consulting firm Bendelta’s event titled ‘The power of potential'. Bendelta organized this event in honor of Professor Yunus to promote his vision of zero poverty, unemployment and net carbon emission. Prof Yunus enthralled audience which included representatives from corporate, government and social sector with his incredible ability to turn established paradigms upside down and use flipped thinking to change the way we look at the world. Prof Yunus also conveyed a highly relevant message for 21st century business - how we design businesses solely to solve human problems.

Nobel Laureate Professor Muhammad Yunus delivering his keynote speech at the Monash University Sustainable Development Institute (MSDI). Earlier he was received by the Vice Chancellor of Monash University Professor Margaret Gardner.

- End   -

 

প্রেস রিলিজ

 

অষ্ট্রেলিয়ায় গ্লোবাল সোশ্যাল চেঞ্জ মেকারদের সম্মেলনে ভাষণ দিলেন প্রফেসর ইউনূস

বিশ্বকে পরিবর্তন করতে চিন্তাধারার পুনর্বিন্যাসের আহ্বান

নোবেল লরিয়েট প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস তাঁর সাম্প্রতিক অষ্ট্রেলিয়া সফরে মেলবোর্ণে অনুষ্ঠিত “নেক্সাস অষ্ট্রেলিয়া কনফারেন্স”-এ ভাষণ দেন। নেক্সাস অষ্ট্রেলিয়া ৮০টিরও বেশী দেশের ২০ থেকে ৪০ বছর বয়সী ২,৫০০-রও অধিক সমাজসেবী, বিনিয়োগকারী ও সামাজিক উদ্যোক্তার একটি আন্দোলন যা সমাজের দ্রুত ও ইতিবাচক পরিবর্তনের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে। প্রফেসর ইউনূস দুই শতাধিক উদ্যোক্তা ও সমাজ পরিবর্তনকারীর এই  সমাবেশে  ভাষণ দেন এবং সামাজিক ব্যবসার মাধ্যমে তাদের নিজ নিজ এলাকা, দেশ ও পৃথিবীর বিভিন্ন সমস্যা সমাধানকল্পে পৃথিবীর ভবিষ্যৎ তাদের নিজের হাতে নেয়ার আহ্বান জানান।

এর পুর্বে মোনাশ ইউনিভার্সিটি সাইটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট ইনস্টিটিউট-এর উদ্যোগে আয়োজিত তিন শতাধিক অংশগ্রহণকারীর একটি বৃহৎ জন-অনুষ্ঠানে ভাষণ দেন প্রফেসর ইউনূস। মোনাশ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর মার্গারেট গার্ডনার গত চার দশক ধরে কোটি কোটি মানুষকে দারিদ্রমুক্ত করতে প্রফেসর ইউনূসের অসামান্য অবদানের জন্য তাঁকে অভিনন্দন জানান। এই অনুষ্ঠানে প্রফেসর ইউনূস মূল ভাষণ প্রদান করেন এবং মোনাশ ইউনিভার্সিটি সাইটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট ইনস্টিটিউটের চেয়ারম্যান প্রফেসর জন থোয়েটেস সম্মেলন মঞ্চেই প্রফেসর ইউনূসের একটি সাক্ষাৎকার গ্রহণ করেন।

নোবেল লরিয়েট প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস ভিক্টোরিয়া রাজ্যের গভর্ণর লিন্ডা ডেসাউ, এসি এর সাথে একটি বৈঠক করেন। উল্লেখ্য যে, মিস লিন্ডা এই রাজ্যের প্রথম মহিলা গভর্ণর। তিনি প্রফেসর ইউনূসের জীবন-ব্যাপী অসাধারণ কর্মকান্ডের জন্য তাঁর প্রশংসা করেন। তিনি অষ্ট্রেলিয়ার বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে সামাজিক ব্যবসার ধারণা কীভাবে কাজে লাগানো যায় সে বিষয়ে প্রফেসর ইউনূসের পরামর্শ চান।

এরপর প্রফেসর ইউনূস কনসাল্টিং ফার্ম বেনডেলটার একটি বিশেষ অনুষ্ঠান “দ্য পাওয়ার অব পোটেনশিয়াল”-এ বক্তব্য রাখেন। প্রফেসর ইউনূসের একটি দারিদ্রমুক্ত, বেকারত্বমুক্ত ও নেট কার্বন নিঃসরণমুক্ত বিশ্ব গড়ে তোলার আন্দোলনের প্রতি সমর্থন জানিয়ে তাঁর সম্মানে এই বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে প্রতিষ্ঠানটি। এতে অংশ নেন কর্পোরেট সেক্টর, সরকার ও সামজিক খাতের প্রতিনিধিবৃন্দ। তাঁর স্বভাবসুলভ যুক্তি, দুরদৃষ্টি এবং প্রচলিত বিশ্বাস ও চিন্তা-কাঠামোর বিপরীতে জীবন ও জগৎকে সম্পুর্ণ নতুনভাবে তুলে ধরে প্রফেসর ইউনূস শ্রোতাদের অভিভূত করেন। এছাড়াও প্রফেসর ইউনূস একুশ শতকের ব্যবসার জন্য একটি অত্যন্ত প্রাসঙ্গিক বার্তা দেন যেখানে ব্যবসাকে শুধু মানবসেবার প্রেক্ষিতে নয় বরং আমরা কীভাবে প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলি এবং এর ভেতরের মানুষগুলোকে পরিচালিত করি তার উপরও আলোকপাত করা হয়।

ছবির ক্যাপশন-১: নোবেল লরিয়েট প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস মোনাশ সাইটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট ইনস্টিটিউটে মূল ভাষণ প্রদান করছেন। এর পূর্বে মোনাশ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর মার্গারেট গার্ডনার তাঁকে মেলবোর্ণে অভ্যর্থনা জানান।

ছবির ক্যাপশন-২: নোবেল লরিয়েট প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস ভিক্টোরিয়া রাজ্যের গভর্ণর মিস লিন্ডা ডেসাউ, এসি এর সাথে সাক্ষাৎ করেন। মিস লিন্ডা এই রাজ্যের প্রথম মহিলা গভর্ণর।

 

---------