Grameen China and Zhongyuan Bank launch 6 branch Grameen microcredit program in Henan, China

Press Release (02 March, 2017)

Nobel Laureate Professor Muhammad Yunus was received by by the Secretary of theCommunist Party of China for Henan Province Mr Xie Fuzhan at the Party Committee's office in the capital city of Zhengzhou to discuss about the poverty alleviation strategies of China and the launch of a Grameen microcredit program in Henan as a collaboration between Grameen China and Zhongyuan Bank, a government owned bank of Henan.

Nobel Laureate Professor Muhamamd Yunus was the chief guest at a high level launch event of a six branch Grameen style microcredit program in Henan Province, China on February 26 which is a collaboration between Henan commercial bank Zhongyuan Bank and Grameen China to bring much needed financial services to the rural poor in that province. Zhongyuan Bank is a new bank in Henan that was created in 2014 but last year posted a profit of US$ 3 billion. The bank which will finance the loan capital and operations of the new initiative which will be implemented by Grameen China invited Professor Yunus to their headquarters in Zhengzhou in Henan province to meet with the Chairman of the Bank, its president and staff and discuss the collaboration. Henan is a province in central China and considered the cradle of Chinese civilization with a recorded history of more than 3,000 years. The launch event was addressed by the Secretary of Henan provincial government, the Chairman, also the President of the bank attended by around 250 dignitaries in Zhengzhou City.

 

Earlier in the day Professor Yunus and his delegation were received by the Mr Xie Fuzhan, Secretary of the Communist Party of China of the Henan Provincial Government at the Party Committee offices in Zhengzhou, the top political leader in this province which has a population of 100 million people. He thanked deeply Professor Yunus for his work on behalf of the poor around the world, and especially for his efforts in support of poverty alleviation efforts in China. He said Professor Yunus and his work and philosophy are well known and admired throughout China and that he was delighted to see the collaboration between Zhongyuan Bank and Grameen China. He pledged his support to the program, and introduced Professor Yunus to the senior-most members of the party committee who joined the meeting and who he said would be at Prof Yunus’ disposal for any help needed with running the program.  Professor Yunus for his part congratulated the Secretary for China's commitment to poverty reduction and for their success in lifting 300 million poor people out of poverty in the last three decades, and said he would be delighted to support in any way the target that China has set for itself to remove poverty by 2020.

On the previous day in Beijing, Grameen China hosted a half day conference about the progress of Grameen microcredit in China that was attended by all the microcredit leaders in China discussing what have been the successes, challenges, and ways forward for the movement in China. The session was addressed by Prof Yunus as chief guest, by Professor Latifee and Mr Abdul Hai Khan of Grameen Trust which has been implementing microcredit in China since 1994, and by the senior representatives of the Chinese Association of Microfinance Du Xiaoshan and Bai Chengyu.

In addition to the launch of the microcredit program in Henan, Professor Yunus was also attended as chief guest the launch of the first Yunus Social Business Centre at a leading university in Beijing in Renmin University on February 25. The center is a collaboration between Renmin University and Yunus Centre, Bangladesh. The university organized a daylong conference on the occasion to discuss about the progress and prospects for microcredit and social business in China.

Nobel Laureate Professor Yunus as Chief Guest official launched of 6 branch Grameen microcredit program as a collaboration between Zhongyuan Bank and Grameen China. Seen in the photo are Professor Yunus and the Chairman of Zhongyuan Bank, Mr Dou Rongxing and Secretary of Henan Provincial Government, Mr Zhu Huan Ran.

 

---- END ------

 

প্রেস রিলিজ

গ্রামীণ চায়না ও জংইউয়ান ব্যাংক চীনের হেনান প্রদেশে গ্রামীণ ক্ষুদ্রঋণ কর্মসূচির ৬টি শাখা চালু করলো

নোবেল লরিয়েট প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৭ চীনের হেনান প্রদেশে  গ্রামীণ ক্ষুদ্রঋণ কর্মসূচির ৬টি শাখা উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। এই প্রদেশের দরিদ্র মানুষদের জন্য এই গুরুত্বপূর্ণ আর্থিক সেবাটি চালু হলো সরকার প্রতিষ্ঠিত জংইউয়ান ব্যাংক ও গ্রামীণ চায়নার যৌথ উদ্যেগে। হেনানে অবস্থিত জংইউয়ান ব্যাংক মাত্র ২০১৪ সালে প্রতিষ্ঠিত হলেও গত বছর ব্যাংকটি ৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলার মুনাফা অর্জন করেছে। গ্রামীণ চায়না পরিচালিত এই নতুন কর্মসূচির জন্য ঋণ মূলধন ও পরিচালনা ব্যয় অর্থায়ন করবে জংইউয়ান ব্যাংক। হেনান প্রদেশের জেংজুতে অবস্থিত ব্যাংকটির প্রধান কার্যালয়ে ব্যাংকটির চেয়ারম্যান, প্রেসিডেন্ট ও স্টাফদের সাথে সাক্ষাৎ করতে ও সহযোগিতা সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করতে ব্যাংকটি প্রফেসর ইউনূসকে আমন্ত্রণ জানায়। চীনের কেন্দ্রস্থলে অবস্থিত তিন হাজার বছরের পুরোন ঐতিহ্যবাহী হেনান প্রদেশকে চৈনিক সভ্যতার সূতিকাগার বিবেচনা করা হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন প্রাদেশিক সরকারের সিনিয়র সদস্যগণ, ব্যাংকটির চেয়ারম্যান ও প্রেসিডেন্ট। জেংজু শহরের প্রায় ২৫০ জন বিশিষ্ট ব্যক্তি অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

ঐ দিনই এর আগে জেংজুতে অবস্থিত চীনা কমুনিস্ট পার্টি অফিসে প্রফেসর ইউনূস ও তাঁর সফর সঙ্গীদের স্বাগত জানান ১০ কোটি জনসংখ্যা অধ্যুষিত হেনান প্রদেশের প্রাদেশিক সরকারের চীনা কমিউনিস্ট পার্টির সর্বোচ্চ রাজনৈতিক নেতা সেক্রেটারী জি ফু জান। সেক্রেটারী বিশ্বব্যাপী দরিদ্র মানুষদের জন্য বিশেষত চীনের দারিদ্র বিমোচন কর্মসূচিতে তাঁর অসাধারণ অবদানের জন্য প্রফেসর ইউনূসকে গভীর ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন যে, প্রফেসর ইউনূস তাঁর কর্ম ও দর্শনের জন্য সমগ্র চীনে বহুল পরিচিত এবং জংইউয়ান ব্যাংক ও গ্রামীণ চায়নার এই যৌথ উদ্যেগটিতে তিনি অত্যন্ত আনন্দিত। তিনি এই কর্মসূচিতে তাঁর সকল সহযোগিতার প্রতিশ্রুতি দেন এবং সভায় আগত পার্টি কমিটির শীর্ষ পর্যায়ের নেতাদের প্রফেসর ইউনূসের সাথে পরিচয় করিয়ে দেন যাঁরা এই কর্মসূচি পরিচালনায় প্রফেসর ইউনূসকে প্রয়োজনীয় সকল সহযোগিতা নিশ্চিত করবেন বলে তিনি জানান। প্রফেসর ইউনূস দারিদ্র বিমোচনে চীনের প্রতিশ্রুতি ও গত তিন দশকে ৩০ কোটি মানুষকে দারিদ্র সীমার উপরে নিয়ে আসার জন্য সেক্রেটারীকে অভিনন্দন জানান এবং বলেন যে, ২০২০ সালের মধ্যে দারিদ্র দূরীকরণের যে লক্ষ্যমাত্রা চীন ধার্য করেছে তা অর্জনে তিনি আনন্দের সাথে সব ধরনের সহযোগিতা করবেন।

এর আগের দিন গ্রামীণ চায়না চীনে গ্রামীণ ক্ষুদ্রঋণ কর্মসূচির অগ্রগতির উপর বেইজিংয়ে একটি অর্ধ-দিনব্যাপী সম্মেলনের আয়োজন করে। চীনে ক্ষুদ্রঋণ নিয়ে নেতৃত্ব দিচ্ছেন  এমন সকল প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তি এই সম্মেলনে তাঁদের সাফল্য, চ্যালেঞ্জ ও ভবিষ্যৎ কর্মপন্থা নিয়ে আলোচনা করেন। প্রফেসর ইউনূস এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ভাষণ দেন। এতে আরো বক্তব্য রাখেন গ্রামীণ ট্রাস্টের প্রফেসর লতিফী ও জনাব আব্দুল হাই খান, এবং গ্রামীণ অ্যাসোসিয়েশন অব মাইক্রাফাইনান্স দু জিয়াওশান এবং বাই চেংইয়ুর সিনিয়র প্রতিনিধিগণ।

হেনানে ক্ষুত্রঋণ কর্মসূচির উদ্বোধন ছাড়াও প্রফেসর ইউনূস তাঁর এই সফরে ২৫ ফেব্রুয়ারী বেইজিংয়ে অবস্থিত চীনের অন্যতম প্রসিদ্ধ রেনমিন বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিষ্ঠিত প্রথম “ইউনূস সামাজিক ব্যবসা কেন্দ্র” উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেন। ইউনূস সেন্টার, বাংলাদেশ এবং রেনমিন বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌথ উদ্যোগে এই কেন্দ্রটি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। চীনে ক্ষুদ্রঋণ কর্মসূচি ও সামাজিক ব্যবসার অগ্রগতি ও ভবিষ্যৎ নিয়ে আলোচনা করতে রেনমিন বিশ্ববিদ্যালয় এই উপলক্ষে একটি দিনব্যাপী সম্মেলনের আয়োজন করে।

--------------

 

hard-extreme.com tellyseries