Yunus Draws Attention of Japanese Business Leaders to Ticking Time Bomb of Wealth Concentration

Press Release (26 February 2017)

Urges Change in Traditional Economic Thinking at Top Japanese Business Forum

Nobel Laureate Professor Muhammad Yunus with Mr. Fujio Cho, the chairman of Business University Forum (BUF) of Japan who is also the honorary chairman of Toyota Motor Corporation. Photo: Nasir Ali Mamun/ Yunus Centre

Nobel Laureate Professor Yunus expressed his worries about the fact that “only eight people in the world own more wealth than owned by bottom 50 percent of world population while delivering his Keynote speech on wealth concentration at the Business University Forum (BUF) in Japan on February 22, 2017. He said, ‘It is now a ticking time bomb. We must address this issue with highest importance. Otherwise we cannot stop social, economic, political explosions.

 

Business University Forum (BUF) is a platform to provide a venue for business and academic leaders to meet and discuss various issues arising from economic development and social changes. To mark its 25th anniversary, BUF organized a symposium titled, “Toward Inclusive Society- Cultivating Talents in a Rapidly Changing Society”. Mr. Fuji Cho, the chairman of BUF and the honorary chairman of Toyota Motor Corporation made the opening remarks and welcomed Professor Yunus to deliver the Keynote speech.

Among the other speakers were Michael Dowling, chairman of the board, Munchner Kreis; Akihiko Kumagai, President and CEO of GE Japan; Dario Gil, Vice President, Science and Solutions, IBM; TAN Chorh Chuan, President National University of Singapore. Professor Yunus’ concept was discussed during the parallel sessions. Mr. Akio Mimura, the chairman of the JCCI (Japan Chamber of Commerce and Industry) described the wealth concentration problem with detailed facts and figures. The symposium focused on a new knowledge-based society, looking ahead to the potential of the technologies, their impacts on social structure, continuous adaptation to changes in people’s values.

Later in the day, Professor Yunus inaugurated a joint innovation center at Tokyo University where all Yunus Social Business Centers (YSBCs) from the Asian-Pacific (AP) region came together to work jointly to foster the contribution to the community development through the platform of Social Business model. The main objective of the AP YSBCs is to align itself with the “Three Zeros” proposition made by the Nobel Laureate Professor Muhammad Yunus. The members of the YSBCs Asia Pacific are from Azerbaijan, Australia, China, Japan, Malaysia, Taiwan and Thailand. Professor Yunus also delivered the Keynote speech at the Social Innovation Symposium held at Tokyo University and organized by University of Tokyo and Kyushu University on February 22nd 2017. Professor Yunus called for revisiting the existing education system at the Symposium.

------------ End -------------

 

প্রেস রিলিজ

সম্পদ কেন্দ্রীকরণের বিস্ফোরন্মুখ টাইম বোমার প্রতি জাপানী ব্যবসায়ী নেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করলেন প্রফেসর ইউনূস : শীর্ষস্থানীয় জাপানী ব্যবসায়ী ফোরামে প্রথাগত অর্থনৈতিক চিন্তাধারা বদলে ফেলতে আহ্বান।

পৃথিবীর মাত্র ৮ জন লোকের হাতে পৃথিবীর নীচের দিকের ৫০ শতাংশ মানুষের মোট সম্পদের বেশী সম্পদ কেন্দ্রীভূত হওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করলেন নোবেল লরিয়েট প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস। গত ২২ ফেব্রুয়ারী ২০১৭ জাপানের “বিজনেস ইউনিভার্সিটি ফোরাম”-এ তাঁর মূল বক্তার ভাষণে তিনি এই উদ্বেগ প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, “এটা এখন এটা বিস্ফোরন্মুখ টাইম বোমা। আমাদের উচিত এই সমস্যাটির প্রতি সর্বাধিক মনোযোগ দেয়া। নইলে এ থেকে উদ্ভূত সামাজিক, অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক বিস্ফোরণ ঠেকানো যাবে না।”

বিজনেস ইউনিভার্সিটি ফোরাম” একটি প্লাটফর্ম যেখানে ব্যবসায়ী নেতা ও শীর্ষ শিক্ষাবিদরা অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও সামাজিক পরিবর্তনের ফলে উদ্ভূত বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে আলোচনা করতে মিলিত হন। ফোরামটি তার ২৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে  “Toward Inclusive Society – Cultivating Talents in a Rapidly Changing Society” শীর্ষক একটি সিম্পোজিয়ামের আয়োজন করে। টয়োটা মোটর কর্পোরেশনের অবৈতনিক চেয়ারম্যান ও বিজনেস ইউনিভার্সিটি ফোরামের সভাপতি জনাব ফুজিও কো অনুষ্ঠানে উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন এবং প্রফেসর ইউনূসকে অনুষ্ঠানের মূল বক্তৃতা দেবার জন্য স্বাগত জানান।

সিম্পোজিয়ামের অপর বক্তাদের মধ্যে ছিলেন জনাব মাইকেল ডাউলিং, বোর্ড চেয়ারম্যান, মুংকনের ক্রাইস; জনাব আকিহিকো কুমাগাই, প্রেসিডেন্ট ও প্রধান নির্বাহী, জেনারেল ইলেকট্রিক জাপান; জনাব ডারিও গিল, ভাইস প্রেসিডেন্ট, সায়েন্স এন্ড সলিউশান্স, আইবিএম; জনাব  টান চোরহ্ চুয়ান, প্রেসিডেন্ট, ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব সিঙ্গাপুর। প্রফেসর ইউনূসের তত্ত্ব নিয়ে সমান্তরাল সেশনগুলোতে আলোচনা হয়। জাপান চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রিজের চেয়ারম্যান জনাব আকিও মিমুরা বিস্তারিত তথ্য-উপাত্তসহ সম্পদ কেন্দ্রীকরণের সমস্যাটি বিশদভাবে ব্যাখ্যা করেন। সিম্পোজিয়াম মনোযোগ নিবদ্ধ করে প্রযুক্তির সম্ভাবনা-ভিত্তিক একটি নতুন জ্ঞান-নির্ভর সমাজের উপর, সামাজিক কাঠামোর উপর এগুলোর প্রভাবের উপর, এবং মানুষের মূল্যবোধের পরিবর্তনের সাথে ক্রমাগত খাপ খাইয়ে নেবার উপর।

ঐ দিনই পরে প্রফেসর ইউনূস টোকিওতে একটি যৌথ উদ্ভাবন কেন্দ্র উদ্বোধন করেন যেখানে এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে অবস্থিত সকল ইউনূস সামাজিক ব্যবসা কেন্দ্র একটি সামাজিক ব্যবসা মডেলের প্লাটফর্মের মাধ্যমে সামাজিক উন্নয়নে অবদান রাখার উদ্দেশ্যে যৌথভাবে কাজ করতে সমবেত হয়। এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে ইউনূস সামাজিক ব্যবসা কেন্দ্রসমূহের মূল লক্ষ্য হচ্ছে নোবেল লরিয়েট প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূসের “তিন শূন্য”-র (শূন্য দারিদ্র, শূন্য বেকারত্ব ও শূন্য নীট কার্বন নিঃস্বরণ) লক্ষ্যের সাথে নিজেদের সমন্বিত করা। এই অঞ্চলের ইউনূস সামাজিক ব্যবসা কেন্দ্রগুলো অষ্ট্রেলিয়া, আজারবাইজান, চীন, জাপান, মালয়েশিয়া, তাইওয়ান ও থাইল্যান্ডে অবস্থিত। এছাড়াও প্রফেসর ইউনূস ২২ ফেব্রুয়ারী টোকিও বিশ্ববিদ্যালয় ও কিউশু বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক যৌথভাবে আয়োজিত এবং টোকিও বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত “Social Innovation Symposium”-এ মূল ভাষণ প্রদান করেন। সিম্পোজিয়ামে প্রফেসর ইউনূস বিদ্যমান শিক্ষা ব্যবস্থা পুনর্বিবেচনা করে দেখার আহ্বান জানান।

ছবির ক্যাপশন: টয়োটা মোটর কর্পোরেশনের অনারারী চেয়ারম্যান ও বিজনেস ইউনিভার্সিটি ফোরাম, জাপান-এর  সভাপতি মি. ফুজিও কো-র সাথে নোবেল লরিয়েট প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস। Photo: Nasir Ali Mamun/ Yunus Centre

--------------

hard-extreme.com tellyseries