459th Social Business Design Lab Held

Press Release (12 January, 2017)

Online Platform for Grameen Poshra Launched

Investments into six social businesses were announced on Thursday, 12th January, 2017 at the 459th Social Business Design Lab. The New Entrepreneurs, children of Grameen Bank borrowers are seen in the photo with Nobel Laureate Professor Muhammad Yunus. Photo Credit: Nasir Ali Mamun /Yunus Centre

The 459th Social Business Design Lab organized by Yunus Centre took place on 12thJanuary 2017 at the Grameen Bank Auditorium with nearly 150 national and international participants from USA, Austria, Italy, Germany and other countries. The Design Lab was chaired by Nobel Laureate Professor Muhammad Yunus. Special attendees include Mr Steve Hollingworth, CEO and President of Grameen Foundation, USA.

Six new Nobin Udyokta (New Entrepreneur) business plans were presented at today's Lab. All Nobin Udyokta businesses, presented at the Design Lab are the children of Grameen Bank borrowers’ families.

 

Md. Joni Mia presented his Arif Hasan Bird Farm (aviary) project for equity investment. Even without any formal training, Joni Mia became an expert in rearing budgerigars. People from faraway places come to him to buy birds. His passion and love for birds has become his profession and with the equity investment from social business fund, he wants to take his aviary to the next level. Ms Sultana Begum presented her Moshfiq Shelai Proshikkan Kendro(garment training school) at the design lab. Ms Sultana, mother of three used to make garments for near and dear ones. Later she decided to use her experience of 10 years to become an entrepreneur. She now teaches others to become tailor. She wants to expand her venture with equity investment. Tean Bon Garments project was presented by Mst. Kahinor Begum, a mother of three. She wants to expand her readymade garments shop with the equity investment from Grameen social business fund.

New Emon Tailors project presented by Mst. Rani Begum, whose father is a Grameen Bank borrower. As young women entrepreneur, she wants to expand her tailoring shop. Ms Sanjida Akhter presented Sanjida Hosto Shilpo project. Ms Sanjida, ambitious young woman, is pursuing her graduation in Economics while at the same time living her dream to become an entrepreneur. She is an expert in making hand-made decorative showpieces and wants to expand the operation. Rumpa Poultry Farm presented by Mst. Rotna Begum who wants to expand her poultry business with the equity investment.

All business plans were presented and discussed in detail. Those were then presented in groups for further review. All projects were approved for funding by their groups. The projects are joint ventures with social business funds and their progress will be monitored on www.socialbusinesspedia.com .

Since the Labs began in January 2013, nearly 12,000 young entrepreneurs have been funded in the last 458 Lab programs with equity investments ranging from taka one lakh to five lakh for Nobin Udyokta projects.

During the program Professor Muhammad Yunus formally launched an online platform for Grameen Poshra, a social business project of Grameen Telecom Trust, selling crafts and products made by the new entrepreneurs, financed from social business funds. He lauded the initiative and expressed his hope that new entrepreneurs would utilize the benefits of e-commerce for their products.

Professor Yunus thanked the participants and invited them to join next Social Business Design Lab which will take place on 14 February, 2017.

Professor Muhammad Yunus formally launched the online order and payment option for the Grameen Pashra, a social business project of Grameen Telecom Trust at 459th Social Business Design Lab on Thursday, 12th January, 2017. Photo Credit: Nasir Ali Mamun /Yunus Centre

Investments into six social businesses were announced on Thursday, 12th January, 2017 at the 459th Social Business Design Lab. The New Entrepreneur Md. Joni Mia of Arif Hasan Pakhir Farm (aviary) project along with his birds are seen in the photo with Nobel Laureate Professor Muhammad Yunus and Ms Saleha Begum, MD, Grameen Shakti Shamajik Byabosha Ltd .  Photo Credit: Nasir Ali Mamun /Yunus Centre

------- END --------

In Bangla

প্রেস রিলিজ

৪৫৯তম সামাজিক ব্যবসা ডিজাইন ল্যাব অনুষ্ঠিত:

গ্রামীণ পসরার অনলাইন প্ল্যাটফর্ম চালু

ইউনূস সেন্টার আয়োজিত ৪৫৯তম সামাজিক ব্যবসা ডিজাইন ল্যাব ১২ জানুয়ারী ২০১৭ গ্রামীণ ব্যাংক অডিটোরিয়াম কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, অষ্ট্রিয়া, ইতালী ও জার্মানীসহ বিভিন্ন দেশীয় ও আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান থেকে প্রায় ১৫০ জন অংশগ্রহণকারী এই ল্যাবে যোগ দেন। নোবেল লরিয়েট প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস ডিজাইন ল্যাবে সভাপতিত্ব করেন। বিশেষ অংশগ্রহণকারী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গ্রামীণ ফাউন্ডেশন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ও প্রধান নির্বাহী জনাব স্টীভ হলিংওয়ার্থ।

আজকের ডিজাইন ল্যাবে ৬টি নতুন “নবীন উদ্যোক্তা” ব্যবসা পরিকল্পনা উপস্থাপিত হয়। উপস্থাপিত ব্যবসাগুলোর উদ্যোক্তাদের সকলেই গ্রামীণ ব্যাংকের ঋণগ্রহীতা পরিবারের সন্তান।

মোঃ জনি মিয়া তাঁর “আরিফ হাসান পাখি খামার” প্রকল্পটি মূলধনী বিনিয়োগের জন্য উপস্থাপন করেন। কোন প্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণ না থাকলেও জনি মিয়া বাজারিগার টিয়ে পালনে বিশেষজ্ঞ হয়ে ওঠেন। দুর-দুরান্ত থেকে থেকে মানুষ পাখি কিনতে তাঁর কাছে আসে। পাখির প্রতি তাঁর আবেগ ও ভালবাসা হয়ে উঠেছে তাঁর পেশা এবং সামাজিক ব্যবসা তহবিল থেকে মূলধন নিয়ে তিনি তাঁর ব্যবসা আরো এগিয়ে নিতে চান। মিস সুলতানা বেগম তাঁর “মুশফিক সেলাই প্রশিক্ষণ কেন্দ্র” প্রকল্পটি ডিজাইন ল্যাবে উপস্থাপন করেন। তিন সন্তানের জননী সুলতানা বেগম তাঁর স্বজনদের জন্য কাপড় সেলাই করতেন। পরবর্তীতে তিনি তাঁর ১০ বছরের অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে নিজেই উদ্যোক্তা হবার সিদ্ধান্ত নেন। তিনি এখন অন্যদের দর্জির কাজ শেখান। তিনি মূলধনী বিনিয়োগের দ্বারা  তাঁর প্রকল্পটি বড় করতে চান। অপর এক তিন সন্তানের জননী মোসাম্মৎ কোহিনুর বেগম তাঁর “তিন বোন গার্মেন্টস” প্রকল্পটি ল্যাবে উপস্থাপন করেন। তিনিও গ্রামীণের সামাজিক ব্যবসা তহবিল থেকে মূলধন নিয়ে তাঁর রেডিমেড গার্মেন্টসের দোকানটি সম্প্রসারিত করার পরিকল্পনা করছেন।

মোছাম্মৎ রানী বেগম উপস্থাপন করেন তাঁর “নিউ ইমন টেইলার্স।” রানী বেগমের পিতা গ্রামীণ ব্যাংকের একজন ঋণী। একজন নারী উদ্যোক্তা হিসেবে তিনি তাঁর দর্জি দোকানটি বড় করতে চান। মিস সানজিদা আক্তার তাঁর “সানজিদা হস্ত শিল্প” প্রকল্পটি তুলে ধরেন। উচ্চকাংখী তরুণী সানজিদা অর্থনীতিতে গ্র্যাজুয়েশন সম্পন্ন করার পাশাপাশি একজন সফল উদ্যোক্তা হবারও স্বপ্ন দেখছেন। তিনি হাতে তৈরী কারুকাজ শোভিত শো-পিস তৈরীতে দক্ষ এবং তাঁর ব্যবসাটি বড় করতে চান। মোছাম্মৎ রতœা বেগম তাঁর “রুম্পা পোলট্রি ফার্ম” প্রকল্পটি উপস্থাপন করেন। তিনিও মূলধনী বিনিয়োগ দ্বারা তাঁর পোলট্রি ব্যবসাটি বড় করতে চাইছেন।

নবীন উদ্যোক্তাদের ব্যবসায়িক পরিকল্পনাগুলো বিশদ উপস্থাপনা করা হয় এবং এগুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। এরপর প্রকল্পগুলো অধিকতর পর্যালোচনার জন্য দলীয় পর্যায়ে উপস্থাপনা করা হয়। উপস্থাপিত প্রতিটি প্রকল্পই স্ব-স্ব দল কর্তৃক অর্থায়নের জন্য অনুমোদিত হয়। গ্রামীণের সামাজিক ব্যবসা তহবিলের সাথে যৌথ-মূলধনী ব্যবসা হিসেবে পরিচালিত এই সামাজিক ব্যবসা প্রকল্পগুলো www.sociabusinesspedia.com –এ মনিটর করা হবে।

জানুয়ারী ২০১৩-এ ডিজাইন ল্যাব শুরু হবার ৪৫৮তম ল্যাব পর্যন্ত প্রায় ১২,০০০ প্রকল্প মূলধনী বিনিয়োগের জন্য অনুমোদিত হয়েছে। এসকল নবীন উদ্যোক্তা প্রকল্পে অনুমোদিত ইক্যুইটি ফান্ডের পরিমাণ প্রকল্প প্রতি ১.০ থেকে ৫.০ লক্ষ টাকা।

আজকের ডিজাইন ল্যাবে প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস আনুষ্ঠানিকভাবে “গ্রামীণ পসরা”র অনলাইন প্ল্যাটফর্ম উদ্বোধন করেন। গ্রামীণ পসরা গ্রামীণ টেলিকম ট্রাস্টের একটি সামাজিক ব্যবসা প্রকল্প যা সামাজিক ব্যবসা তহবিল থেকে অর্থায়নকৃত বিভিন্ন নবীন উদ্যোক্তা প্রকল্পের হস্তশিল্প পণ্য বিক্রি করে থাকে। তিনি উদ্যোগটির প্রশংসা করেন এবং আশা প্রকাশ করেন যে, নবীন উদ্যোক্তারা তাদের পণ্যের জন্য ই-কমার্সের সুবিধা নিতে পারবে।

প্রফেসর ইউনূস ডিজাইন ল্যাবে যোগদানের জন্য অংশগ্রহণকারীদেরকে ধন্যবাদ জানান এবং ১৪ ফেব্রুয়ারী  ২০১৭ তারিখে অনুষ্ঠেয় পরবর্তী সামাজিক ব্যবসা ডিজাইন ল্যাবে যোগদান করতে তাঁদের আমন্ত্রণ জানান।

-----------

hard-extreme.com tellyseries